ছোটদের জ্যামিতি   শিক্ষা


জ্যামিতির সংজ্ঞাঃ


জ্যামিতি দুটি গ্রীক শব্দ জ্যা' ও 'মিতি হতে এসেছে। জ্যা শব্দের অর্থ ভূমি আর 'মিতি শব্দের অর্থ পরিমাপ প্রণালী। অর্থাৎ 'জ্যামিতি অর্থ ভমি পরিমাপ প্রণালী।অতএব, যে শাস্ত্র পাঠ করলে ভূমি পরিমাপ সম্পর্কে যাবতীয়   বিষয় জানা যায়, তাকে জ্যামিতি বলে।মিশরের আলেকজান্দ্রিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গ্রীক পণ্ডিত ইউক্লিডকে জ্যামিতি শাস্ত্রের জনক বলা হয়।

জ্যামিতিক অংকন বাক্সঃ

জ্যামিতি বিষয়ক চিত্র অংকন ও পরিমাপের জন্য ব্যবহৃত যন্ত্রপাতিগুলাে।যে বাক্সে রাখা হয়, তাকে জ্যামিতিক অংকন বাক্স বলে। জ্যামিতিক অংকন বাক্সে যে সব যন্ত্রপাতি থাকে সেগুলো হচ্ছেঃ

১। ১টি কাঁটা কম্পাস
২। ১টি পেনসিল কম্পাস
৩। ১টি চাঁদা
৪। ২টি ত্রিকোণী বা সেট স্কোয়ার
৫। ১টি রুলার
৬। ১টি পেনসিল
৭। ১টি পেনসিল কাটার
৮। ১টি রাবার

জ্যামিতির বিভিন্ন যন্তপাতির চিত্র ও ব্যবহার 


কাঁটা কম্পাসঃ 

ইহা সাধারণত  কোন রেখাংশের দৈর্ঘ্য পরিমাপের জন্য ব্যবহার করা হয়।          
কাঁটা কম্পাস


পেন্সিল কম্পাসঃ

পেন্সিল কম্পাসঃ



 বৃত্ত, অর্ধবৃত্ত, বৃত্তচাপ, কোণ ইত্যাদি অংকন। করার জন্য ইহা ব্যবহৃত হয়।

চাঁদাঃ

চাঁদাঃ


চাঁদার সাহায্যে নির্দিষ্ট পরিমাপের কোণ অংকন ও কোণ পরিমাপের জন্য ব্যবহৃত হয়।

ত্রিকোণীঃ 

ত্রিকোণীঃ



ত্রিকোণীর সাহায্যে সমান্তরাল রেখা অংকন করা যায়।

রুলারঃ 

রুলারঃ



বুলারের সাহায্যে কোনাে রেখাংশের দৈর্ঘ্যের পরিমাপ ইঞ্চিতে ও সেন্টিমিটারেও নির্ণয় করা যায় এবং নির্দিষ্ট দৈর্ঘ্যের রেখাংশও আঁকা যায়।

ঘনবস্তুর বিভিন্ন আকৃতি

যে সব বস্তুর দৈর্ঘ্য, প্রস্থ ও বেধ বা উচ্চতা আছে তাকে ঘনবস্তু বলে। যেমনঃ ইট, বই, ডাস্টার ইত্যাদি।


ঘনবস্তু বিভিন্ন আকৃতির হয়ে থাকে।যেমন :


ঘনক আকৃতিঃ

দৈর্ঘ্য, প্রস্থ ও উচ্চতা বিশিষ্ট ঘনবস্তুকে ঘনকআকৃতির ঘনবস্তু বলে। যেমনঃ ইট, বাক্স, বই ইত্যাদি।

মােচক আকৃতিঃ

কলার মােচার মত উপরের দিক মােটা ও গােল।মােচক আকৃতি ও এবং নিচের অংশ ক্রমশ সরু এরূপ আকৃতির ঘনবস্তুকে মােচক বলে ।যেমনঃ কলার মােচা, চোঙ ইত্যাদি।


গােলক আকৃতিঃ

গােলক, বল বা বলের মত গােলাকার ঘনবস্তুকে গােলক আকৃতির ঘনবস্তু বলে। যেমনঃ মার্বেল, তাল, বেল ইত্যাদি।

বেলন আকৃতিঃ

রুটি তৈরির বেলনের মত লম্বা গােলাকার ঘনবস্তুকে বেলন আকৃতির ঘনবস্তু বলে। যেমন : গ্লাস,
বেলন, পাইপ ইত্যাদি।

পিরামিড আকৃতিঃ 

পিরামিডের মত যে বস্তুর পার্শ্বগুলাে উপরে একটি বিন্দুতে মিলিত হয়েছে তাকে পিরামিড আকৃতির
ঘনবস্তু বলে।



Previous Post Next Post